মেহেরপুরের গাংনীতে ধর্ষন ও এডিস নিক্ষেপ মামলার আসামী কাজল বন্দুকযুদ্ধে নিহত

559

মেহেরপুরের গাংনীতে ধর্ষন ও এডিস নিক্ষেপ মামলার আসামী ইয়াকুব আলী ওরফে কাজল (২৮) পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপজেলার গাড়াডোব গ্রামে এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের এসআই সহ ৪ সদস্য আহত হয়েছে। গাংনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আহতরা চিকিৎসা নিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় ওয়ান শূর্টারগান ও একটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। নিহত ইয়াকুব আলী ওরফে কাজল গাড়াডোব গাছলা পাড়ার জালাল উদ্দীনের ছেলে।
গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্র নাথ সরকার জানান, ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় গাডাডোব গ্রামের এক ছাত্রীকে অপহরণ পূর্বক গণধর্ষণ করে কাজলসহ কয়েকজন। ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে গাংনী থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার প্রধান আসামি ইয়াকুব হোসেন কাজল। ঘটনার পর থেকে তারা ধলা গ্রামে আত্মগোপন করে। পরে গেল বৃহস্পতিবার বিকেলে ধলা গ্রামে এক গৃহবধু তার কু-নজরে পড়ে, কু-প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় তার মুখে এসিড নিক্ষেপ করে কাজল। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে গাংনী থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পরে ইয়াকুব আলী ওরফে কাজলকে সাথে নিয়ে শুক্রবার রাতে পুলিশ অস্ত্র উদ্ধারে গেলে, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তার সহযোগিরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ইয়াকুব আলী ওরফে কাজলকে উদ্ধার করে গাংনী হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক এমকে রেজা তাকে মৃত ঘোষনা করেন। তিনি আরো জানান, তার বিরুদ্ধে গাংনী থানায় স্কুল ছাত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষন ও এক গৃহবধুর উপর এডিস নিক্ষেপের মামলা রয়েছে।