ইউটিউব চ্যানেলের তালিকায় বিশ্বের সেরা পাঁচে যমুনা টেলিভিশন
বিশ্বের শীর্ষ ৫ সংবাদভিত্তিক ইউটিউব চ্যানেলের তালিকায় যমুনা টেলিভিশন, মার্কিন জরিপকারী প্রতিষ্ঠান সোশ্যাল ব্লেড-এর র‍্যাংকিংয়ে এ চিত্র উঠে আসে
১৩৮

বিশ্বের শীর্ষ পাঁচ সংবাদভিত্তিক ইউটিউব চ্যানেলের তালিকায় উঠে এসেছে সংবাদমাধ্যম যমুনা টেলিভিশনের ইউটিউব চ্যানেল।
মার্কিন জরিপকারী প্রতিষ্ঠান সোশ্যাল ব্লেড-এর র‍্যাংকিংয়ে এ চিত্র উঠে আসে। বৈশ্বিক তালিকায় বাংলাদেশের কোনো সংবাদমাধ্যমের ইউটিউব চ্যানেলের শীর্ষ পাঁচে উঠে আসার ঘটনা এই প্রথম।

মাত্র আড়াই বছরেরও কম সময়ে ৪০ লাখের বেশি সাবস্ক্রাইবার পেয়েছে যমুনা টেলিভিশন।

সোশ্যাল ব্লেডের এই তালিকায় শীর্ষে আছে ভারতের সংবাদভিত্তিক চ্যানেল আজ তাক। জনপ্রিয় মার্কিন সংবাদভিত্তিক চ্যানেল সিএনএন’র অবস্থান ৯-এ। ভারতের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির অবস্থান ১০-এ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের অবস্থান-১৪ তম। পাকিস্তানের শীর্ষ সংবাদ চ্যানেল জিও নিউজের অবস্থান ৪০-তম। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি নিউজের হিন্দি সংস্করণের অবস্থান ২৫-তম আর ইংরেজি সংস্করণের অবস্থান ৬১-তম। আল জাজিরা অ্যারাবিক আছে ৪২-তম অবস্থানে। দ্য টেলিগ্রাফের ইউটিউব চ্যানেল ৯৪-তম অবস্থানে। তালিকায় শীর্ষ ১০০’র মধ্যে বাংলাদেশি নিউজ চ্যানেল ইনডিপেনডেন্টও আছে (৫৯-তম অবস্থানে)।

সোশ্যাল ব্লেডের তালিকায় সাবস্ক্রাইবারের পাশাপাশি চ্যানেলের কনটেন্টের ভিউ, ফিডব্যাক ও সামগ্রিক প্রভাব বিবেচনায় নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে যমুনা নিউমিডিয়া টিমের ইনচার্জ রুবেল মাহমুদ গণমাধ্যমকে বলেন, দায়িত্বশীলতার সঙ্গে সত্য ও সঠিক কনটেন্ট ফলোয়ারদের সামনে উপস্থাপনের ব্যাপারে আমরা বদ্ধ পরিকর। পাশাপাশি, দৈনন্দিন নিউজ কনটেন্ট ছাড়াও সংবাদভিত্তিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান, বিশ্লেষণ থাকে আমাদের চ্যানেলে। এক কথায় কনটেন্টের বৈচিত্র্য ও দায়িত্বশীল উপস্থাপনই আমাদের চ্যানেলটিকে এগিয়ে দিয়েছে। আরেকটি বিষয় উল্লেখ করতে চাই, আমরা অনেক চ্যানেলের মতো ফেইক নিউজ ও ক্লিকবেইট হেডলাইন দিয়ে মানুষকে আকর্ষণ করার চেষ্টার করি না। ফলে, এই অর্জন আমাদের অনুপ্রাণিত করছে। ’

প্রতিষ্ঠানের সকল সহকর্মীদের অভিনন্দন জানিয়ে যমুনা টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক ফাহিম আহমদ বলেন, ‘এই অর্জন আমাদের আরও দায়িত্বশীল করে তুলবে। করোনা পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে আমরা কোনো ধরনের উদ্‌যাপন করছি না। তবে আমাদের দর্শক, ফলোয়ারদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। আমাদের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ আমাদের কর্মস্পৃহা আরও বৃদ্ধি করবে। ’

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More